শুটিংয়ের সময় মানিকবাবু নিজের গায়ের শাল তাঁর গায়ে জড়িয়ে দিয়েছিলেন,প্রয়াত অভিনেতা মনু মুখোপাধ্যায়

শুটিংয়ের সময় মানিকবাবু নিজের গায়ের শাল তাঁর গায়ে জড়িয়ে দিয়েছিলেন,প্রয়াত অভিনেতা মনু মুখোপাধ্যায়

প্রয়াত বর্ষীয়ান অভিনেতা মনু মুখোপাধ্যায়। বয়স হয়েছিল ৯০ বছর। দীর্ঘদিন ধরে হৃদযন্ত্রের সমস্যায় ভুগছিলেন তিনি |

মানিকবাবুর ছবি ‘জয় বাবা ফেলুনাথ’-এ মনু মুখার্জির অভিনয় মানিকবাবুর সাথে প্রথমবার কাজ নয় | এর আগেও ‘অশনি সংকেত ‘- এ গ্রাম্য মস্তানের ভূমিকায় মনুবাবুকে দেখা গিয়েছিল | কোথায় ? সেই চাল লুটের দৃশ্যে যেখানে সৌমিত্র ওরফে গঙ্গাচরণকে ধাক্কা দিয়ে মাটিতে ফেলে অশ্রাব্য গালিগালাজ | তবে সেটা তেমন গুরুত্বপূর্ণ ছিল না বলে মানিকবাবুর নজরে সেইভাবে রেখাপাত করে নি |
‘ জয় বাবা ফেলুনাথ ‘ ছবির শুটিংয়ের সময় মানিকবাবু বলেছিলেন , ‘ তুমি অশনি সঙ্কেত -এ একটা ছোট্ট রোল করেছিলে , না ?”
মনু মুখার্জি ‘হ্যাঁ’ বললে মানিকবাবু বলেছিলেন , ‘ হ্যাঁ , তখন আমি তোমায় চিনতাম না |’
যাই হোক , এবার যাওয়া যাক বেনারসের গঙ্গার ঘাটে | সময়টা ডিসেম্বর মাস | হাড়কাঁপানো ঠাণ্ডা | আচ্ছা যাঁরা ডিসেম্বরে বেনারস গেছেন কখনো ভোরবেলায় গঙ্গায় ডুব দিয়েছেন ?
মানিকবাবু জানতেন বেশ কঠিন কাজ এটা | তাই আগের দিন মনু মুখার্জিকে মানিকবাবু বলেছিলেন , ‘ শোনো মনু , কাল থেকে তোমার কাজ শুরু হবে |কালকে তুমি ভোর চারটেয় উঠে রেডি হয়ে নেবে | তুমি গঙ্গায় স্নান করে উঠে আসছ, এটাই হবে তোমার ফার্স্ট শট |”
বলার অপেক্ষা রাখে না , মনুবাবুর মনের অবস্থা তখন একেবারে যা তা | আর হবে নাই বা কেন ! ওই ঠান্ডায় গঙ্গার কনকনে ঠাণ্ডা জলে ডুব !
মনুবাবু তবুও বললেন , ‘ ঠিক আছে , তাই করব |’
সময় সচেতন মানিকবাবু পরদিন সকাল বেলায় ঘুম থেকে তুললেন মছলিবাবা ওরফে মনু মুখার্জিকে | গরম চা এসে গেল | মেক – আপ আর্টিস্ট অনন্ত দাশ বসে গেলেন মনুবাবুর হাতে এরোপ্লেনের উল্কি আঁকতে |
এর পরেই ইউনিটের অন্যদের সাথে যাত্রা দশাশ্বমেধ ঘাটের উদ্দেশ্যে | মনুবাবুর কথায় , সময়টা তখন সকাল সাড়ে সাতটার মত |
গায়ে গামছা জড়িয়ে সকালের গঙ্গায় কাঁপতে থাকা মনুবাবুর উদ্দেশ্যে মানিকবাবু বলেছিলেন , ‘ শোনো মনু , তুমি ডুব দেওয়ার পর আমি ‘অ্যাকশন’ বললে তুমি জল থেকে উঠে এসে এইখানে দাঁড়াবে | মনে রেখো , এই শটটা কিন্তু একবারে ও-কে করতে হবে | নাহলে তোমারই কষ্ট , এই ঠান্ডায় তোমায় বারবার ওই ঠান্ডা জলে ডুবতে হবে |’
প্রস্তুত মনুবাবু | দশাশ্বমেধ ঘাটে ক্যামেরা নিয়ে তৈরি মানিকবাবু | মনুবাবু এগিয়ে গেলেন মা গঙ্গার স্পর্শ পেতে | হাড়কাঁপানো ঠাণ্ডা জলে দিলেন ডুব | ভিউফাইন্ডারে চোখ রেখে মানিকবাবুও কাল বিলম্ব না করে বললেন , ‘ স্টার্ট ۔۔ক্যামেরা ۔۔۔অ্যাকশন |”
মানিকবাবুর হাঁকের অপেক্ষায় ছিলেন মনুবাবু | ভুস করে ভেসে উঠলেন | একেবারে পাকা অভিনেতার মতো মানিকবাবু নির্দেশিত জায়গায় এসে দাঁড়ালেন | প্রায় সঙ্গে সঙ্গেই মানিকবাবু বলেছিলেন , ‘ কাট |’
সেইসঙ্গে মানিকবাবুর মুখ থেকে বেরিয়ে এল, ‘ ফাইন , ফাইন |”
এরপরেই সেই অভিভাবকসুলভ কথা , ‘ এই , কে আছো , মনুকে এক্ষুনি শুকনো কাপড় ও কফি দাও |”
এরপরেই মানিকবাবু কী করেছিলেন জানেন ?
নিজের গায়ের শালটা খুলে বলেছিলেন , ‘ এই শালটা ভালো করে গায়ে জড়িয়ে নাও |’
এ যেন শীতের সকালে কনকনে ঠাণ্ডায় ভালোবাসার উষ্ণ আমেজ | বলুনতো ক’জন অভিনেতার ভাগ্যে জোটে ?
তাইতো আপ্লুত মনুবাবু বলেছিলেন , ‘ মানিকদা মানিকদা-ই |”

আরো পড়ুন:  গীতা দে'র অভিনয় দেখে মুগ্ধ হয়েছিলেন বিখ্যাত অভিনেতা ও চিত্র পরিচালক লরেন্স অলিভার

-পবিত্র মুখোপাধ্যায়

Avik mondal

Avik mondal

Related post

করোনাকে না করো

ভাইরাসের কবলে আজ সারা বিশ্ব,গৃহবন্দী বিশ্ববাসী।বন্ধ দ্বার খুলতে তাই নিজেদের সুরক্ষিত রাখুন,হাত ধুয়ে নেমে পড়ুন এই ভাইরাস দমনে।