ইডেনে ২০ রান দিয়ে ৭ উইকেট তুলে নিয়েছিলেন “ক্রিকেটার” স্বামী বিবেকানন্দ

ইডেনে ২০ রান দিয়ে ৭ উইকেট তুলে নিয়েছিলেন “ক্রিকেটার” স্বামী বিবেকানন্দ

প্রায় ১৩৫ বছর আগের কথা । ইডেন গার্ডেন্সে সেদিন টাউন ক্লাবের মুখোমুখি ইংরেজদের কলকাতা ক্রিকেট ক্লাব । ইডেনের বয়স তখন প্রায় ২০ বছর | সেই ম্যাচে টাউন ক্লাবের হয়ে মাঠে নামেন এক তরুণ অলরাউন্ডার । নেমেই প্রতিভা দেখাতে থাকলেন নিজের । ইংরেজদের সেদিন নাস্তানাবুদ করে দিয়েছিলেন তিনি । ২০ রান দিয়ে তুলে নিয়েছিলেন ৭ উইকেট । প্রসঙ্গত সেদিন ইংরেজদের টাউন ক্লাব মাত্র ২০ রানেই অল আউট হয়ে যায় । সেদিনের সেই অলরাউন্ডারকে আমরা সকলেই চিনি । তিনি ছিলেন স্বামী বিবেকানন্দ । তখন অবশ্য তিনি স্বামী বিবেকানন্দ হিসেবে পরিচিত ছিলেন না, নরেন্দ্রনাথ দত্ত হিসেবেই পরিচিত ছিলেন । ক্রিকেটের পাশাপাশি ফুটবল, বক্সিং আর ফেন্সিংয়েও দক্ষ ছিলেন তিনি । স্কটিশ চার্চ কলেজে পড়ার সময়েও বিভিন্ন খেলায় অংশ নিতেন স্বামীজী । নিয়মিত যেতেন ব্যায়ামের আখড়ায় ।

আরো পড়ুন:  ব্রিটিশদের বিরুদ্ধে বিদ্রোহ করায় চার বছর জেল খেটেছিলেন বিশ্বশ্রী মনোহর আইচ

সেই সময়ে ইংরেজরা মনোরঞ্জনের জন্য ক্রিকেট খেলতেন । কলকাতায় ইংরেজরা প্রতিষ্ঠা করলেন কলকাতা ক্রিকেট ক্লাব । ধীরে ধীরে ভারতীয়দের মধ্যেও জনপ্রিয় হয় ক্রিকেট । কলকাতার বেশ কিছু তরুণ আগ্রহ দেখালেন ক্রিকেটের উপর । গণিতবিদ ও উপমহাদেশে ক্রিকেটের অগ্রদূত সারদারঞ্জন রায় প্রতিষ্ঠা করলেন টাউন ক্লাব । সেইসময় কলকাতা ক্রিকেট ক্লাব ও টাউন ক্লাবের ক্রিকেট ম্যাচে জমাট লড়াই হত । হেমবাবু নামক জনৈক কেউকেটা স্বামী বিবেকানন্দকে টাউন ক্লাবের হয়ে খেলতে অনুরোধ করলে রাজি হয়ে যান স্বামী বিবেকানন্দ । বেশ কিছুদিন বোলিং অনুশীলন করেন তিনি | ম্যাচের আগে হেমবাবু বিবেকানন্দকে বলেছিলেন, “আবেগে ভেসো না আর নিজের বোলিং মনোনিবেশ করো” আর ম্যাচে সেটাই করেছিলেন বিবেকানন্দ |

আরো পড়ুন:  তাঁর সেঞ্চুরির উপর ভর করেই ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে ভারত প্রথমবার টেস্ট ম্যাচ জিতেছিল

এরপর অবশ্য আর খুব বেশি খেলেননি স্বামী বিবেকানন্দ | দেশের প্রতি সমর্পণ করেন নিজের জীবন | যদিও সন্ন্যাস নেওয়ার আগে অবধি টাউন ক্লাবের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন তিনি | স্বামী বিবেকানন্দের জীবন আজও তরুণ প্রজন্মের কাছে আদর্শ | কিন্তু এরই মাঝে হয়ত হারিয়ে গিয়েছেন “ক্রিকেটার” স্বামী বিবেকানন্দ |

আরো পড়ুন:  তাঁর খেলা দেখতে মাঠে হাজির হতেন রাষ্ট্রপতি,মোহনবাগানকে মা বলতেন গোষ্ঠ পাল

তথ্য : ১৯৭০ সালের কাছাকাছি যুগান্তর পত্রিকায় জয়ন্ত দত্তের লেখা, তথ্য দিয়ে সাহায্য করেছেন ক্রিকেট গবেষক সুমিত গঙ্গোপাধ্যায়

১৯৭০ সালের কাছাকাছি যুগান্তর পত্রিকায় জয়ন্ত দত্তের লেখা, তথ্য দিয়ে সাহায্য করেছেন ক্রিকেট গবেষক সুমিত গঙ্গোপাধ্যায়
Avik mondal

Avik mondal

Related post

Leave a Reply

করোনাকে না করো

ভাইরাসের কবলে আজ সারা বিশ্ব,গৃহবন্দী বিশ্ববাসী।বন্ধ দ্বার খুলতে তাই নিজেদের সুরক্ষিত রাখুন,হাত ধুয়ে নেমে পড়ুন এই ভাইরাস দমনে।