তিন বছর বয়সেই তবলা বাজাতে শুরু করেন বাপ্পী লাহিড়ী,চার বছর বয়সেই পেয়েছিলেন ‘বিস্ময় বালক’ সম্মান

তিন বছর বয়সেই তবলা বাজাতে শুরু করেন বাপ্পী লাহিড়ী,চার বছর বয়সেই পেয়েছিলেন ‘বিস্ময় বালক’ সম্মান

তার আসল নাম অলকেশ লাহিড়ী | কিন্তু সেই নামে তাকে বোধহয় খুব কম লোকেই চেনে | তিনি সকলের কাছেই বাপ্পী লাহিড়ী বা বাপ্পীদা বলেই পরিচিত | ১৯৫২ সালের ২৭ নভেম্বর জলপাইগুড়িতে জন্মগ্রহণ করেন বাপ্পী লাহিড়ী | বাবা অপরেশ লাহিড়ী ছিলেন একজন বাংলা সঙ্গীতের জনপ্রিয় গায়ক। মা বাঁশরী লাহিড়িও ছিলেন একজন সঙ্গীতজ্ঞ ও গায়িকা | সংগীত শিল্পী কিশোর কুমার সম্পর্কে তার মামা | মা বাবার মাধ্যমেই সঙ্গীত জগতে হাতেখড়ি বাপ্পী লাহিড়ীর | তিন বছর বয়সেই তবলা বাজাতে শুরু করেন | ওই বয়সেই তবলা বাজিয়েই সকলকে তাক লাগিয়ে দিতেন তিনি | চার বছর বয়সেই কলকাতা শহরে ‘বিস্ময় বালক’ সম্মান পেয়েছিলেন | লতা মঙ্গেশকরও অপরেশ বাঁশরীর সঙ্গীতানুষ্ঠানে তবলা বাজানো দেখেই বলেছিলেন এই বিস্ময় বালক একদিন কিংবদন্তি শিল্পী সুরকার হবে |

বাপ্পী লাহিড়ী মাত্র ১৯ বছর বয়সে দাদু (১৯৭২) নামক বাংলা চলচ্চিত্রে প্রথম কাজ করেন | এরপর চলে আসেন মুম্বাই | ১৯৭৩ সালে নানহা শিকারী ছবিতে কাজ করেন | এরপর তাহির হুসেনের জখমী (১৯৭৫) চলচ্চিত্রে কাজ করেন। এই সিনেমায় তিনি গান রচনা করেছিলেন,এমনকি গানও করেছিলেন | এরপর রবিকান্ত নাগাইচের সুরক্ষা ছবিতে গান গেয়ে সঙ্গীতকার হিসেবে জনপ্রিয়তা পান বাপ্পী লাহিড়ী | কিন্তু বাপ্পী লাহিড়ী সারা ভারতে জনপ্রিয় হয়ে ওঠেন ডিস্কো ডান্সার সিনেমায় সঙ্গীত পরিচালনা করে | সমগ্র ভারতবর্ষে তিনি ‘ডিস্কো কিং’ নামে পরিচিত হন |

আরো পড়ুন:  কফি হাউসে বসে আড্ডার মাঝেই চিরকুটে সলিল চৌধুরী লিখে ফেললেন বিখ্যাত গান-'পা মা গা রে সা/ তার চোখের জটিল ভাষা'

বহু সিনেমায় সঙ্গীত পরিচালনা করেছেন বাপ্পী লাহিড়ী | তার মধ্যে অন্যতম, এক বার কহো (১৯৮০); সুরক্ষা; ওয়ারদাত; আরমান; চলতে চলতে; কমাণ্ডো; ইলজাম; পিয়ারা দুশমন; ডিস্কো ড্যান্সার; ড্যান্স ড্যান্স; ফিল্ম হি ফিল্ম; সাহেব; টারজান; কসম পয়দা করনে ওয়ালে কি; ওয়ান্টেড: ডেড অর এলাইভ; গুরু; জ্যোতি; নমক হালাল; শরাবী (১৯৮৫: ফিল্মফেয়ার সেরা সঙ্গীত পরিচালকের পুরস্কার); এইতবার; জিন্দাগী এক জুয়া; হিম্মতওয়ালা; জাস্টিস চৌধুরী; নিপ্পু রাব্বা; রোদী ইন্সপেক্টর; সিমহাসনম; গ্যাং লিডার; রৌদী অল্লাদু; ব্রহ্মা; হাম তুমহারে হ্যায় সনম এবং জখমী ইত্যাদি | বাপ্পী লাহিড়ী নিজের লিখিত বেশ কিছু গানে কণ্ঠ দিয়েছেন। উল্লেখযোগ্য গানের মধ্যে অন্যতম – রাহি হু মে (ওয়ান্টেড: ডেড অর এলাইভ); বোম্বাই সে আয়া মেরা দোস্ত (আপ কি খাতির); মৌসম হ্যায় গানে কা (সুরক্ষা); তুম জো ভি হো (সুরক্ষা); তু মুঝে জান সে ভি পিয়ার হ্যায় (ওয়াদাত); ইয়াদ আ রাহা হ্যায় (ডিস্কো ড্যান্সার); সুপার ড্যান্সার (ড্যান্স ড্যান্স); দেখা হ্যায় ম্যায়নে তুমহে ফির সে পলাতকে (ওয়ারদাত); দিল মে হে তুম (সত্যমেব জয়তে); জে লা লা (টারজান); বাম্বাই নাগারিয়া (ট্যাক্সি নং ৯২১১) |

আরো পড়ুন:  গান শুনে মুগ্ধ কথাশিল্পী শরৎচন্দ্র চট্টোপাধ্যায় হাতে দিলেন পাঁচ টাকার নোট,ধনঞ্জয় ভট্টাচার্য পেলেন জীবনের শ্রেষ্ঠ পুরস্কার

বাপ্পী লাহিড়ীর সুরে বিখ্যাত গানগুলির মধ্যে উল্লেখ্য – চলতে চলতে মেরে ইয়ে গীত ইয়াদ রাখনা; দিল সে মিলে দিল, দিল সে মিলে দিল (দিল সে মিলে দিল); মুসকুরাতা হুয়া (লাহো কে দো রং); চার দিন কি জিন্দেগী হ্যায় (এক বার কাহো); ধীরে ধীরে সুবহ হুয়ে (হৈসিয়াত); মান হো তুম (তুতে খিলোনে); তেরী ছোটি সি ভুল (শিক্ষা); ইয়ে নায়না ইয়ে কাজল (দিল সে মিলে দিল); গাও মেরে মন (আপনে পরায়ে); পিয়া হি জিনে কি (আরমান); পিয়ার মাঙ্গা হ্যায় তুমহি সে; কে পাগ ঘুঙ্গরাও বান্ধ মিরা নাচি থি।বেশ কিছু গজল গানও রচনা করেছেন তিনি। কিসি নজর কো তেরা ইন্তেজার আজ ভি হ্যায় (এইতবার); আওয়াজ দি হিয়া (এইতবার) তার মধ্যে অন্যতম।

আরো পড়ুন:  দুর্ঘটনায় বুকে এসে লাগল গাড়ির স্টিয়ারিং,ঘটনাস্থলেই মারা গেলেন ছবি বিশ্বাস

তথ্য : শুভদীপ বন্দ্যোপাধ্যায় ব্লগ,উইকিপিডিয়া

Avik mondal

Avik mondal

Related post

করোনাকে না করো

ভাইরাসের কবলে আজ সারা বিশ্ব,গৃহবন্দী বিশ্ববাসী।বন্ধ দ্বার খুলতে তাই নিজেদের সুরক্ষিত রাখুন,হাত ধুয়ে নেমে পড়ুন এই ভাইরাস দমনে।