রান্না করতে গিয়ে হাত পুড়ে যেত স্ত্রী-র,সমস্যার সমাধানে এয়ারলে ডিকসন আবিষ্কার করলেন ব্যান্ড-এড

রান্না করতে গিয়ে হাত পুড়ে যেত স্ত্রী-র,সমস্যার সমাধানে এয়ারলে ডিকসন আবিষ্কার করলেন ব্যান্ড-এড

শরীরের কোথাও কেটেকুটে গেলে আমাদের প্রথম যে জিনিসটার কথা মাথায় আসে | তার নাম ব্যান্ড-এড | বাঙালির প্রায় ঘরের জিনিস হয়ে গেছে ব্যান্ড-এড | ফার্স্ট এইড বক্সেও ব্যান্ড-এড থাকতেই হবে | কিন্তু জানেন কি ব্যান্ড-এড আবিষ্কারের নেপথ্য কাহিনী | উত্তর জানতে ফিরে যেতে হবে ১০০ বছর |

১৯২০ সাল | জনসন অ্যান্ড জনসন-এর কর্মী ছিলেন আমেরিকার এয়ারলে ডিকসন | এয়ারলে ডিকসন লক্ষ্য করতেন প্রায়ই তার সদ্যবিবাহিতা স্ত্রী জোসেফিন নাইট ডিকসন রান্না করতে গিয়ে হাত পুড়িয়ে ফেলছেন বা কেটে ফেলছেন | বর্তমানে ব্যাপারটাকে সামান্য মনে হলেও আজ থেকে একশো বছর আগে ব্যাপারটা সামান্য ছিল না | সেই সময় স্বাস্থ্যসম্মত উপায়ে ব্যান্ডেজ করার উপায় খুব কমই ছিল আর এর ফলে ইনফেকশন হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা ছিল | প্রথম প্রথম স্ত্রী-র হাত পুড়ে গেলে ডিকসন সেখানে কাপড়ের টুকরো লাগিয়ে বেঁধে দিতেন | কিন্তু সেটা খুব কম সময় অবধি হাতে থাকত | হাত ধুতে গেলে কিংবা অন্য কাজ করতে গেলেই সেটা খুলে যেত |

আরো পড়ুন:  বরিশালের মুকুটহীন সম্রাট ছিলেন তিনি,বাঙালি মনে রাখেনি অশ্বিনীকুমার দত্তকে

বেশ কয়েকবার ডিকসন চেষ্টা করলেন কাপড় দিয়ে সমস্যার সমাধান করার | কিন্তু কিছুই লাভ হল না | ঠিক করলেন এমন কিছু একটা স্যানিটারি কভারিং আবিষ্কার করবেন যেটা ব্যবহারও সহজ আর সহজে হাত থেকে খুলে যাবে না | একদিন হঠাৎ ডিকসন বাড়িতে নিয়ে এলেন এন্টিসেপটিক কটন গজ ( antiseptic cotton gauze ) এবং সার্জিকাল এডহেসিভ টেপ ( surgical adhesive tape ) | এরপর তিনি সার্জিকাল এডহেসিভ টেপ থেকে ১৮ ইঞ্চি দৈর্ঘ্য এবং ৩ ইঞ্চি প্রস্থবিশিষ্ট একটি টুকরো কেটে নেন | এরপর এই টেপের থেকে একটু কম দৈর্ঘ্য ও প্রস্থবিশিষ্ট এন্টিসেপটিক কটন গজ টুকরো কেটে নেন | এরপর ওই কটন গজের টুকরোটিকে ওই টেপের টুকরোর মাঝামাঝি রেখে ক্রিনোলাইন ফেব্রিক দিয়ে সেটিকে জুড়ে দেন | এরপর সেটিকে স্ত্রীর পুড়ে যাওয়া জায়গায় লাগিয়ে দেন | হয়ে যায় সব সমস্যার সমাধান | এভাবেই আবিষ্কার হয় ব্যান্ড-এড | ব্যবহার করার পর দেখা যায় এটি সুরক্ষিত এবং সহজে হাত থেকে খুলে যায় না |

আরো পড়ুন:  হাইজেনবার্গের মডেলের উপর গবেষণা করে তিনি আবিষ্কার করেন "মজুমদার-ঘোষ" মডেল,আমরা কি মনে রেখেছি বিজ্ঞানী চঞ্চল মজুমদারকে?

নিজের সহধর্মিনীর কথা ভাবতে গিয়ে আবিষ্কার করে ফেলা ব্যান্ড-এড ক্রমেই জনপ্রিয় হয়ে ওঠে । বিক্রির দায়িত্ব নেয় জনসন অ্যান্ড জনসন | আজও যার ব্যবহার বিশ্বজোড়া |

-অভীক মণ্ডল
তথ্য : জনসন অ্যান্ড জনসন ওয়েবসাইট

আরো পড়ুন:  নীলরতন সরকার মেডিকেল কলেজের বিদ্যুৎ সংযোগহীন একটি ছোট ঘরে আবিষ্কার করেছিলেন কালাজ্বরের প্রতিষেধক
Avik mondal

Avik mondal

Related post

Leave a Reply

করোনাকে না করো

ভাইরাসের কবলে আজ সারা বিশ্ব,গৃহবন্দী বিশ্ববাসী।বন্ধ দ্বার খুলতে তাই নিজেদের সুরক্ষিত রাখুন,হাত ধুয়ে নেমে পড়ুন এই ভাইরাস দমনে।