লকডাউনে উপার্জনহীন যৌনকর্মীদের খাওয়ার ব্যবস্থা করছেন,আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি পেলেন রিনা আখতার

লকডাউনে উপার্জনহীন যৌনকর্মীদের খাওয়ার ব্যবস্থা করছেন,আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি পেলেন রিনা আখতার

মাত্র আট বছর বয়সে রিনা আখতারকে যৌনপল্লীতে বেচে দেওয়া হয় | ওই বয়স থেকেই বেড়ে উঠতে থাকেন সেখানে | বাধ্য হয়েই বেছে নিতে হয় যৌনকর্মীর পেশা | তারপর কেটে গিয়েছে বহু বছর | কিন্তু এরই মাঝে এসে যায় করোনা | করোনার সময় পতিতাপল্লীর মহিলাদের খদ্দের ছিল না | অভুক্ত অবস্থায় কাটাচ্ছিলেন যৌনকর্মীরা এবং তাদের সন্তানেরা | রিনা আখতার বুঝতে পারছিলেন কিছু একটা করা দরকার | শেষমেশ নিজেই বেশ কিছু সঙ্গীদের সাহায্যে ঢাকার পতিতালয়ের ৪০০ জন মহিলাকে প্রতিসপ্তাহে খাবারের ব্যবস্থা করেছেন তিনি | খাওয়াচ্ছেন ভাত,ডাল,তরকারি,ডিম | কখনও কখনও খাদ্য তালিকায় রয়েছে মাছ,মাংসও | রিনা আখতারের এই অভূতপূর্ব পরিকল্পনায় রক্ষা পেয়েছে ঢাকার পতিতালয়ের যৌনকর্মীরা |

আরো পড়ুন:  পুঁটিরামের ডাল কচুরি,রাধাবল্লবী,রাজভোগে ১৫০ বছরের স্বাদ !

কিন্তু কেন এই পরিকল্পনা ?
রিনা আখতারের কথায় ‘ভালো মানুষজন তো যৌনকর্মীদের পাশে এসে দাঁড়াবে না, তাই আমি দাঁড়িয়েছি | একসময় নিজেও যৌনকর্মী ছিলাম, তাদের আর্থিক ও সামাজিক অবস্থায় খবর রাখি। তাই মহামারীকালে এগিয়ে আসি যৌনকর্মীদের সাহায্য করতে।’ তিনি আরও বলেন, “যৌনকর্মীরা যাতে ক্ষুধার্ত না থাকেন, আমি সেই চেষ্টা করেছি।
তাঁদের সন্তানেরাও যেন এ কাজ করতে বাধ্য না হয়, সেই চেষ্টা করছি।”

আরো পড়ুন:  বাংলার বিখ্যাত মিষ্টি লেডিকেনি, এক বিশেষ কারণে এই নাম দিয়েছিলেন ভীম চন্দ্র নাগ

রিনা আখতারের এই কাজ বিশ্ববাসীর নজর কেড়েছে । করোনা মহামারীর সময় অভূতপূর্ব কাজের স্বীকৃতি হিসাবে, ২০২০ সালের, ১০০ জন প্রেরণাদায়ক ও প্রভাব সৃষ্টিকারী ( Inspiring & Influential Women) সেরা মহিলার নামের তালিকা প্রকাশ করেছে , রিনা আখতারের নামও উঠে এসেছে ‘বিবিসি ১০০ নারী’ তালিকায়।

আরো পড়ুন:  দীর্ঘদিনের কাজের স্বীকৃতি, WHO’র পোলিও সংক্রমণ গবেষণায় পরামর্শদাতা হলেন বিজ্ঞানী সেঁজুতি সাহা

রিনা আখতার – গভীর শ্রদ্ধা !

Avik mondal

Avik mondal

Related post

করোনাকে না করো

ভাইরাসের কবলে আজ সারা বিশ্ব,গৃহবন্দী বিশ্ববাসী।বন্ধ দ্বার খুলতে তাই নিজেদের সুরক্ষিত রাখুন,হাত ধুয়ে নেমে পড়ুন এই ভাইরাস দমনে।