কলকাতায় মটন ‘প্যান্থারাস’-এর একমাত্র ঠিকানা প্রায় ৯০ বছরের পুরোনো শ্যামবাজারের বড়ুয়া এন্ড দে ফাস্ট ফুড সেন্টার

কলকাতায় মটন ‘প্যান্থারাস’-এর একমাত্র ঠিকানা প্রায় ৯০ বছরের পুরোনো শ্যামবাজারের বড়ুয়া এন্ড দে ফাস্ট ফুড সেন্টার

চিকেন ‘প্যান্থারাস’ কিংবা মটন ‘প্যান্থারাস’ | নামটা শুনলেই জিভে জল এসে যায় | কিন্তু কলকাতায় কোথায় পাওয়া যায় প্যান্থারাস ?

কলকাতায় ‘প্যান্থারাস’-এর একমাত্র ঠিকানা হল শ্যামবাজারের বড়ুয়া এন্ড দে ফাস্ট ফুড সেন্টার | শ্যামবাজারের রাজা মণীন্দ্র কলেজের বিপরীতে গৌরীমাতা সরণি | এই গৌরীমাতা সরণি ধরে কিছুটা এগোলেই চোখে পড়বে চাকচিক্যহীন এক দোকান | নাম বড়ুয়া এন্ড দে ফাস্ট ফুড সেন্টার | প্রায় ৯০ বছরের পুরোনো এই দোকানে পাওয়া যায় ‘প্যান্থারাস’ | এই দোকানের প্রতিষ্ঠা করেন নকুল বড়ুয়া | এরপর ফটিক দে ও বিধুভূষণ বড়ুয়া এই দোকানের দায়িত্ব সামলান | তারপরের প্রজন্মের জয়দেব দে এবং রাজু বড়ুয়া এই দোকানের দায়িত্ব নেন |

আরো পড়ুন:  ২৫০ বছরের পুরোনো 'আদি হরিদাস মোদক'-এ কলাপাতায় লুচি আর খোসা সমেত আলুর তরকারি আজও একইরকম

কি কি পাওয়া যায় শ্যামবাজারের বড়ুয়া এন্ড দে ফাস্ট ফুড সেন্টারে ?
পাওয়া যায় ব্রেস্ট কাটলেট (৫০ টাকা),ফিশ ফ্রাই(৫০ টাকা), চিকেন ফ্রাই(৬০ টাকা),ফিস রোল(৬০ টাকা),মটন প্যান্থারাস(৪০ টাকা),মটন চপ(৪০ টাকা),ফিশ চপ(৪০ টাকা),ডিমের ডেভিল(৪০ টাকা),চিকেন কাটলেট(৫০ টাকা),ফিশ ফিঙ্গার(৫০ টাকা) | সুস্বাদু খাবারের টানে বছরের পর বছর বড়ুয়া এন্ড দে ফাস্ট ফুড সেন্টারের আসেন ভোজনরসিকেরা | দামও একদম মধ্যবিত্তের নাগালের মধ্যেই | আর খাবারের গুণমান সত্যিই অসাধারণ |

আরো পড়ুন:  বর্ধমানে মহামারী,নিজের প্রাণ বিপন্ন করে আর্তের সেবায় ঝাঁপিয়ে পড়লেন "চিকিৎসক" বিদ্যাসাগর

সপ্তাহে সাতদিনই খোলা থাকে এই দোকান | বিকেল সাড়ে পাঁচটায় চালু হয়ে বন্ধ হয় রাত নটায় | কলকাতার বিভিন্ন অঞ্চলের লোক প্যান্থারাস-এর টানে ভিড় জমান শ্যামবাজারের বড়ুয়া এন্ড দে ফাস্ট ফুড সেন্টারে | অনেকেই দীর্ঘ ১৫ ২০ বছর ধরে আসছেন এই দোকানে | পাশাপাশি কলেজ পড়ুয়াদের ভিড়-ও লেগেই থাকে | এভাবেই এগিয়ে চলুক বাঙালির ব্যবসা | এগিয়ে চলুক বড়ুয়া এন্ড দে ফাস্ট ফুড সেন্টার |

আরো পড়ুন:  দুই সংস্কৃতির সঙ্গে নিজেদের একাত্ম্য করেও শিকড়কে নিয়েই আজও বেঁচে আছেন কলকাতার কাবুলিওয়ালারা

তথ্য : কলকাতা টক ঝাল মিষ্টি

Avik mondal

Avik mondal

Leave a Reply

করোনাকে না করো

ভাইরাসের কবলে আজ সারা বিশ্ব,গৃহবন্দী বিশ্ববাসী।বন্ধ দ্বার খুলতে তাই নিজেদের সুরক্ষিত রাখুন,হাত ধুয়ে নেমে পড়ুন এই ভাইরাস দমনে।