রসমুন্ডির পায়েস আর শহরের অন্যতম সেরা কচুরির স্বাদ ৭০ বছরের পুরনো ‘মৃত্যুঞ্জয় এন্ড সন্স’এ

রসমুন্ডির পায়েস আর শহরের অন্যতম সেরা কচুরির স্বাদ ৭০ বছরের পুরনো ‘মৃত্যুঞ্জয় এন্ড সন্স’এ

কলকাতা, তুমিও হেঁটে দেখো
কলকাতা, তুমিও ভেবে দেখো
যাবে কি না যাবে আমার সাথে |

কলকাতা | কলকাতা মানেই নস্টালজিয়া | কলকাতা মানেই ইতিহাস | একদম স্ট্রিট ফুড থেকে শুরু করে হালের পাঁচতারা হোটেল প্রায় সবের পেছনেই রয়েছে বহু অজানা ইতিহাস | খাদ্যরসিকরা জানেন, এই বিশাল শহরের অলিতে গলিতে লুকিয়ে আছে এরকম অনেক মনিমুক্তের ঠিকানা যারা বছরের পর বছর শহরের রসনাতৃপ্তি করে যাচ্ছে |

গরম গরম কচুরি আর তরকারির উপর বাঙালির একটা আলাদা ভালবাসা আছে | আদি নাম কর্চরিকা, আর এখন কচুরি | অভিধান বলছে, ডালের পুর দেয়া ভাজা খাবারই হল কচুরি। সেভাবে দেখলে, ছোলার ডালের পুরীকেও কচুরি বলতে হবে। কিন্তু না, খাঁটি কচুরিতে কাঁচা বিউলির ডাল আর হিঙের পুর ছাড়া অন্য কিছু চলবে না।রাজ্যভেদে এর ভিন্ন প্রকারভেদ, উত্তরে ইনি কাচৌরি, আবার কোনো কোনো জায়গায় ইনি পুরী, আর আমাদের বাংলায় ইনি নোনতা মিষ্টি কচুরি ! ইনার জন্ম কবে বলা মুশকিল তবে বানারসি দাস তাঁর ‘Ardhakathanaka’ তে ১৬১৩ সালে ইন্দোর শহরে কচুরি কেনার কথা বলেছেন, তিনি ছিলেন বিশিষ্ট ‘কাচৌরি’ প্রেমিক, তিনি নাকি সাত মাস ধরে রোজ এক সের কচুরি নিতেন |

আরো পড়ুন:  গ্রামবাংলার থেকে হারিয়ে যাচ্ছে কড়ুই

কলকাতার সেরা কচুরির দোকানের কথা উঠলে দক্ষিণ কলকাতার মৃত্যুঞ্জয় ঘোষ এন্ড সন্স-এর কথা উঠবেই | আজ থেকে বাহাত্তর বছর আগে মৃত্যুঞ্জয় ঘোষ দক্ষিণ কলকাতার ল্যান্সডাউন অঞ্চলে প্রতিষ্ঠা করেন এই দোকানের | শরৎ বোস রোড দিয়ে যেতে যেতে ম্যাডক্স স্কোয়ারে যাওয়ার রাস্তার ঠিক বিপরীত ফুটেই মৃত্যুঞ্জয় ঘোষ এন্ড সন্স, দোকানের সামনেই ‘পালিত স্ট্রিট’ লেখা করপোরেশনের ইয়া বড় একটা হলুদ বোর্ড লাগানো আছে | পাঞ্জাব ন্যাশনাল ব্যাংকের ল্যান্সডাউন শাখার ঠিক পাশেই এই দোকান | একসময় এই অঞ্চলে ভাল মিষ্টির দোকান ছিল না | মৃত্যুঞ্জয় ঘোষ দোকানে ঘি এ ভাজা মিষ্টি বানাতেন | অল্পদিনের মধ্যেই জনপ্রিয়তা পায় এই দোকানের মিষ্টি |

আরো পড়ুন:  বাঙালির শৈশব থেকে হারিয়ে যাচ্ছে হাঁদা ভোঁদা, নন্টে ফন্টে, বাটুল দি গ্রেট

প্রায় ৭০ বছরের পুরনো এই মিষ্টির দোকানে এলে আপনি পেয়ে যাবেন রসমুন্ডির পায়েস । এই দোকানের রসমুন্ডির পায়েস বিখ্যাত | দাম ৪৫০/- কেজি প্রতি | মৃত্যুঞ্জয় ঘোষ এন্ড সন্স-এর কড়াইশুঁটির কচুরি অত্যন্ত বিখ্যাত । এছাড়াও আপনি পেয়ে যাবেন ফুলকপির সিঙ্গাড়া, রাধাবল্লভী, রসগোল্লা ও নানান সুস্বাদু মিষ্টি | স্থানীয়দের কথায় বিকেলের টিফিনে যদি মৃত্যুঞ্জয়ের সিঙ্গারা না হয় তাহলে নাকি ব্যাপারটা ঠিক জমে না | উত্তম কুমার থেকে শুরু করে রবি ঘোষ সকলেই মুগ্ধ ছিলেন এই দোকানের কচুরিতে | সকাল ৮ টা থেকে রাত অব্দি সারাদিনই মেলে কচুরি | ইতিহাসের সাক্ষী থাকতে আর গরম গরম কচুরির স্বাদ পেতে একবার ঘুরেই আসুন মৃত্যুঞ্জয় ঘোষ এন্ড সন্স-এ |

আরো পড়ুন:  মুক্তিযুদ্ধে জয়ের খবর তিনিই প্রথম শুনিয়েছিলেন বাংলাদেশের মানুষকে

তথ্য : মৈনাক বিশ্বাস, কলকাতা টক ঝাল মিষ্টি

Avik mondal

Avik mondal

করোনাকে না করো

ভাইরাসের কবলে আজ সারা বিশ্ব,গৃহবন্দী বিশ্ববাসী।বন্ধ দ্বার খুলতে তাই নিজেদের সুরক্ষিত রাখুন,হাত ধুয়ে নেমে পড়ুন এই ভাইরাস দমনে।