ধর্মতলা নামকরণের পিছনে রয়েছে গ্রাম বাংলার উপাস্য দেবতা ধর্ম ঠাকুর

ধর্মতলা নামকরণের পিছনে রয়েছে গ্রাম বাংলার উপাস্য দেবতা ধর্ম ঠাকুর

আধুনিক ভারতের সাংস্কৃতিক ইতিহাসে সবার আগে চলে আসে কলকাতা মহানগরীর নাম।কলকাতার মানুষই প্রথম পাশ্চাত্য আধুনিকতায় অভ্যস্ত হয়ে উঠেছিল। তবে তারা পুরানো ঐতিহ্যকে কখনও ত্যাগ করেনি। বরং ঐতিহ্যের সঙ্গে আধুনিকতাকে সফলভাবে একত্রিত করে হয়ে উঠেছে ভারতের সাংস্কৃতিক রাজধানী। কলকাতার একটি অন্যতম বৈশিষ্ট্য হল পাড়া সংস্কৃতি। এখানকার একটি পাড়ার আমেজের সঙ্গে অন্য পাড়ার কোন মিল নেই। অর্থাৎ এক এক পাড়ার এক এক পরিবেশ। শ্যামবাজারের যে ফ্লেভার তা আপনি কলেজ স্ট্রিটে পাবেন না।আবার কলেজ স্ট্রিটের যা পরিবেশ তার বিকল্প পাবেন না গড়িয়াহাটে। কলকাতার একটি বিশেষ অঞ্চল ধর্মতলা। যা এসপ্ল্যানেড নামে পরিচিত। এই ধর্মতলা নিয়ে বেশ কিছু গল্প আছে। সেগুলি জানাবো।

আরো পড়ুন:  মৃত্যুর পরেও বেঁচে উঠেছিলেন প্রথম ভারতীয় যুদ্ধবিমান চালক ইন্দ্র রায়,ধ্বংস করেছিলেন ৯টি জার্মান যুদ্ধবিমান

ধর্মতলা অঞ্চলটি কলকাতার মধ্যে একটি অন্যতম জমজমাট স্থান। অতীতে লালমুখো সাহেবরা বসবাস করতেন এই স্থানে। তখন জায়গাটি এখনকার মতো ঘিঞ্জি ছিল না। বেশ পরিস্কার পরিচ্ছন্ন ছিল। এই স্থানের নাম ধর্মতলা কিভাবে হল তা নিয়ে অনেক ভিন্ন ভিন্ন মতামতও আছে।

ইউরোপীয় সাহেব নাম রেভারেন্ড জেমস লং মনে করতেন এখন যেখানে ধর্মতলা, এখন যেখানে টিপু সুলতান মসজিদ আগে তার পাশে একটা ঘোড়ার আস্তাবল ছিল। সেই আস্তাবলের জমিতে একটি মসজিদ বানানো হয়েছিল। তবে যেটা আর নেই। এই মসজিদের প্রথম কারবালার সমাবেশ ও মহানগরে। এরকম ধর্মীয় পরিবেশ ছিল বলেই স্থানটির নাম হয় ধর্মতলা।

আরো পড়ুন:  ভারতে প্রথম সম্পূর্ণ দেশীয় প্রযুক্তিতে মোটর গাড়ি নির্মাণ করেন "কলকাতার বিশ্বকর্মা" বিপিনবিহারী দাস

বর্তমানে অনেক গবেষকরা বলেন, গ্রাম বাংলার উপাস্য দেবতা ধর্ম ঠাকুরের নামের সঙ্গে ধর্মতলা নামের এক যোগসূত্র আছে। সমাজের নিচু স্তরের অর্থাৎ বাউরি,বাগদী,হারি , ডোম জাতির মানুষেরা একটা সিঁদুর মাখানো পাথরের টুকরো তে পূজা করত। সেই সময় জানবাজার অঞ্চলটি তে একদম নিম্নবর্গের মানুষ বসবাস করত।তাঁরা ঘটা করেই ধর্ম ঠাকুরের পূজা করতেন। তখন তারা সেই দেবতার একটি মন্দির তৈরি করেছিলেন। সেই মন্দির পণ্ডিত হরিপ্রসাদ শাস্ত্রী দেখেছিলেন। এই জানবাজার এলাকাতে ধর্ম ঠাকুরের পূজা হত। গাজন হত, মেলা হতো -একটা জমজমাট উৎসব চালু ছিল।

আরো পড়ুন:  রানি রাসমণির সঙ্গে ওতপ্রোত ভাবে জড়িয়ে আছে বাবুঘাটের নাম

ধর্মতলা জায়গাটার একদিকে ছিল ফোর্ট উইলিয়াম দুর্গ, আরেকদিকে ছিল জনবসতি। দুর্গ ও শহরের মধ্যবর্তী জমিতে ইংরেজিতে বলে এসপ্ল্যানেড। যে কারণে ধর্মতলা সাহেবদের মুখে এসপ্ল্যানেড নামেও পরিচিত হয়ে উঠেছিল। আগে নাকি এখানেই মেম্বা পীরের বাজার ছিল ।তবে পরে হক সাহেবের বাজার চালু হলে পুরনো এই বাজারের প্রতিপত্তি হ্রাস পায়।

ডঃ হর্নেট সাহেব একটা অন্য ব্যাখ্যা দিয়েছিলেন, জানবাজার এলাকায় বৌদ্ধদের একটা বসতি ছিল। তারা বিভিন্ন ধর্মীয় অনুষ্ঠান করতেন। সেখান থেকেই ‘ধর্মতলা’ নামটা এসেছে বলে মনে করা হয়।

তথ্য : বঙ্গদর্শন (শ্রেয়ণ)

Tripti Das Roy

Tripti Das Roy

করোনাকে না করো

ভাইরাসের কবলে আজ সারা বিশ্ব,গৃহবন্দী বিশ্ববাসী।বন্ধ দ্বার খুলতে তাই নিজেদের সুরক্ষিত রাখুন,হাত ধুয়ে নেমে পড়ুন এই ভাইরাস দমনে।