পুজোর আগেই কলকাতার রাস্তায় ফিরছে দোতলা বাস

পুজোর আগেই কলকাতার রাস্তায় ফিরছে দোতলা বাস

পুজোর আগেই কলকাতার রাস্তায় ফিরছে দোতলা বাস । ২০০৫ সাল থেকে দোতলা বাস তুলে দেওয়া হয়েছিল । প্রায় ১৫ বছর পর শহরের রাস্তায় দোতলা বাস দেখা যাবে । তবে পুরোনো দোতলা বাসের মত নয়, এই বাস ফিরছে একদম আধুনিক চেহারায় । বাসগুলিতে থাকছে সিসিটিভি, প্যানিক বাটন, অটোম্যাটিক দরজা, ডেস্টিনেশন বোর্ড । নীল সাদা রঙের এই বাসে মোট আসন ৫১টি, এর মধ্যে দোতলায় ১৭টি । বাসে প্রবেশ করার জন্যে থাকবে একটি দরজা । দোতলা অংশ ঘিরে রাখা আছে স্বচ্ছ ফাইবার গ্লাস দিয়ে।

আরো পড়ুন:  বিশ্বের সবথেকে পুরনো চালু স্টুডিওটি ছিল কলকাতাতেই,বহু ইতিহাসের সাক্ষী "বোর্ন অ্যান্ড শেফার্ড"

বাস নির্মাণ করেছে বিশেষজ্ঞ সংস্থা জামশেদপুরের “বেবকো” ।দু’টি বাসের জন্য রাজ্য সরকারের খরচ পড়েছে ৯০ লক্ষ টাকা।মূলত পর্যটনের প্রসারের জন্যেই এই বাস চলবে । মঙ্গলবার নবান্ন থেকে দু’টি বাসের যাত্রার সূচনা করবেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় । বাসটি ভারত স্টেজ-৪ গোত্রের।ধীরে ধীরে মোট ১০ টি দোতলা বাস নিতে চায় রাজ্য পরিবহন দফতর।

দোতলা বাস নিয়ে রয়েছে বহু নস্টালজিয়া । শহরের সঙ্গে দোতলা বাসের প্রায় আট দশকের সম্পর্ক ।কলকাতায় প্রথম দোতলা বাস নামে ১৯২৬ সালে । কালীঘাট থেকে শ্যামবাজার অবধি । পরিবহণের জন্য স্বাধীনতার পর সিএসটিসি নামের সংস্থা তৈরি হয়, তারাই কলকাতার রাস্তায় দোতলা বাস নামায় । এই বাস খুব জনপ্রিয় হয় ।  কবি নীরেন্দ্রনাথ চক্রবর্তীর “কলকাতার যীশু” কবিতায় দোতলা বাসের গল্প আছে। এছাড়া একাধিক সিনেমাতেও কলকাতার দোতলা বাসের নানা গল্প রয়েছে। সেই দোতলা বাসের রং ছিল লাল । ১৯৮৫-তে সিএসটিসি শেষবার ২৯৫টি দোতলা বাস কিনেছিল । কিন্তু তেলের বিপুল খরচ বলে ১৯৯০ থেকেই বিভিন্ন রুটে দোতলা বাস কমিয়ে দেওয়ার কাজ শুরু হয়। ২০০৫ সালে বন্ধ হয়ে যায় দোতলা বাস ।

আরো পড়ুন:  নোবেলের কাছাকাছি গিয়েও ফিরে আসতে হয়েছিল যে সকল বাঙালিকে

বাস কোথা থেকে ছাড়বে, কোথায় যাবে- সে সব সবিস্তারে এখনও জানানো হয়নি । ভাড়া নিয়েও সিদ্ধান্ত হয়নি । তবে কলকাতার পর্যটনকে আকর্ষণীয় করে তুলবে এই নতুন দোতলা বাস, এই কথা নিঃসন্দেহে বলাই যায় ।

আরো পড়ুন:  দেশের পরমাণু শক্তি গবেষণার অন্যতম পথিকৃৎ তিনি,কোভিড আক্রান্ত হয়ে প্রয়াত বিজ্ঞানী শেখর বসু
Avik mondal

Avik mondal

Leave a Reply

করোনাকে না করো

ভাইরাসের কবলে আজ সারা বিশ্ব,গৃহবন্দী বিশ্ববাসী।বন্ধ দ্বার খুলতে তাই নিজেদের সুরক্ষিত রাখুন,হাত ধুয়ে নেমে পড়ুন এই ভাইরাস দমনে।