সুইডেনের সর্ববৃহৎ হোটেল চেন “এলিট হোটেলস অফ সুইডেন” এর মালিক এই বঙ্গসন্তান

সুইডেনের সর্ববৃহৎ হোটেল চেন “এলিট হোটেলস অফ সুইডেন” এর মালিক এই বঙ্গসন্তান

১৯৬৬ সাল | সুইডেনের স্টকহোম বিশ্ববিদ্যালয়ে সমাজতত্ত্ব পড়তে গেলেন এক বঙ্গসন্তান | তখন থেকেই মাথায় ঢুকেছিল ব্যবসার নেশা | ঠিক করেছিলেন কারও গোলামি করবেন না | কিন্তু কিসের ব্যবসা করবেন ঠিক বুঝে উঠতে পারছিলেন না | এদিকে পড়াশোনারও যথেষ্ট চাপ |

তিনি খেয়াল করলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রাবাস গ্রীষ্মাবকাশে ফাঁকাই থাকে | ঠিক করলেন এইগুলো ভাড়া নিয়ে হোটেল ব্যবসা শুরু করলে কেমন হয় ! কিন্তু সেগুলো ভাড়া পাওয়া সহজ না | অনেক কাঠখড় পুড়িয়ে তিনি ছাত্র ইউনিয়নের কাছ থেকে এই আবাসগুলি ভাড়া নেন | শুরু করেন হোটেল ব্যবসা | কিছুদিনের মধ্যেই ফুলেফেঁপে ওঠে তার ব্যবসা | পরিস্থিতি এমন যে এক দেড় মাস আগে থেকে বুকিং না করলে ঘর পাওয়া অসম্ভব | আর ফিরে তাকাতে হয়নি ওই বঙ্গসন্তানকে |

আরো পড়ুন:  আইআইটি থেকে পাস করে চাকরি না করে ব্যবসা,শিল্পপতি অশোক মুখার্জী অনুপ্রেরণার আরেক নাম

তিনি বরুন চক্রবর্তী | লোকে অবশ্য তাকে বিকি চক্রবর্তী বলেই চেনে | জন্ম ১৯৪৩ সালের ২৮শে আগষ্ট কলকাতায় | কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতক হন এবং সুইডেনের স্টকহোম বিশ্ববিদ্যালয়ে সমাজতত্ত্ব পড়তে যান | কিন্তু ব্যবসার চাপে সেই পড়া আর শেষ হয়নি | এরপর তিনি একের পর এক হোটেল খুলতে থাকেন । কিনে নেন বিখ্যাত সিটি হোটেল | ১৯৮০ সালে কিনে ফেলেন লন্ডনের বিখ্যাত হোটেল ইন লন্ডন | এরপর বিকি ওখানকার ক্ষতিতে চলা হোটেলগুলো কিনে নেন আর নিজের অধ্যবসায়ের দ্বারা সবগুলোকে লাভজনক করে তোলেন। তিনি বর্তমানে সুইডেনের বিখ্যাত হোটেল চেন এলিটের মালিক | এটি সুইডেনের একমাত্র হোটেল চেন |

আরো পড়ুন:  বি.এন.দে,দে'জ মেডিক্যাল এবং ছয় দশকের উপর আধিপত্য বজায় রাখা ব্র্যান্ড 'কিও কার্পিন'

বিভিন্ন সন্মানে ভূষিত হয়েছেন বরুন চক্রবর্তী। ২০০৮ সালে তিনি Royal Patriotic society র বিজনেস মেডেল পান। এছাড়া তিনি ভারত সরকার প্রদত্ত প্রবাসী ভারতীয় সন্মান লাভ করেন। তিনি প্রিন্সেস ম্যারিয়েন্ট বার্নাডোটের বোন ইনভা লিন্ডসবার্গকে বিয়ে করেন। বর্তমানে সুইডেনের নাগরিক এই বঙ্গসন্তান বাংলার গর্ব |

আরো পড়ুন:  টাকা ধার করে শুরু করেছিলেন ব্যবসা,আজ বাংলার বাজি ব্যবসায় এক নম্বর জায়গাটি পাকা "বুড়িমা"র

কে বলে বাঙালি ব্যবসা করতে জানে না !

বাংলা আমার প্রাণ

বাংলা আমার প্রাণ

"বাংলা আমার প্রাণ" বাংলা ও বাঙালির রীতিনীতি,বিপ্লবকথা,লোকাচার,শিল্প ও যাবতীয় সব কিছুর তথ্য প্রকাশ করে।বাংলা ভাষায় বাংলার কথা বলে "বাংলা আমার প্রাণ"। সকল খবর ও তথ্য আপনাদের কেমন লাগছে,তা আপনাদের কতোটা মন ছুঁতে পারছে তা জানতে আমরা আগ্রহী।যাতে আগামী দিনে আপনাদের আরো তথ্য উপহার দিতে পারি। আপনাদের মতামত ওয়েবসাইটে প্রকাশ করুন,আরো এগিয়ে যাওয়ার পথে এটিই আমাদের পাথেয়। বিন্দু বিন্দুতে সিন্ধু গড়ে ওঠে।আর তাই আজ আপনাদের ভালোবাসা সহযোগিতা ও অনুপ্রেরণায় আমরা এক বৃহৎ পরিবার।এখনো বহু পথ চলা বাকি তাই আপনাদের সাধ্য ও বিবেচনা অনুযায়ী অনুদান দিয়ে এই পেজের পাশে থাকুন। আমাদের পেজে প্রকাশিত সকল তথ্য আমরা একে একে নিয়ে আসছি আমাদের ইউটিউব চ্যানেলে ভিডিও আকারে।দয়া করে আমাদের পেজ ও ওয়েবসাইট থেকে প্রকাশিত কোনো তথ্য বা লেখা নিয়ে কোনো ভিডিও বানাবেন না।যদি ইতিমধ্যে তা করে থাকেন তবে তা অবিলম্বে মুছে ফেলুন। আমাদের সকল কাজ DMCA কর্তৃক সংরক্ষিত তাই এ সকল তথ্যাদির পুনর্ব্যবহার বেআইনি ও কঠোর পদক্ষেপ সাপেক্ষ।ধন্যবাদ।

Related post

করোনাকে না করো

ভাইরাসের কবলে আজ সারা বিশ্ব,গৃহবন্দী বিশ্ববাসী।বন্ধ দ্বার খুলতে তাই নিজেদের সুরক্ষিত রাখুন,হাত ধুয়ে নেমে পড়ুন এই ভাইরাস দমনে।